,

জিপিএ-৫ আজ যেন দেশের মহামারি (ভিডিও দেখুন)

রুদ্র আমিন # কি আর বলবো বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। বিশ্বাস না হলে একবার ভিডিওটি দেখুন। কেন আপনার মরে যেতে ইচ্ছে করবে, সেটাই ভাবুন। জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে গর্ব করছেন ? সেই গর্ব আবার দেশ দেশাত্নর ছড়িয়ে বেড়াচ্ছেন। বড় করে ছবি দিয়ে দিচ্ছেন পত্র-পত্রিকায়। আহ্‌ কি গর্ব তাদের নিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং পরিবারের। হাজার হাজার জিপিএ-৫ দিয়ে দেশের বৃষ্টি আড়াল করার জন্য ছাতা তৈরী হয়েছে মনে হয় কিন্তু এটা শুধুই মেধাশূন্য একটা দেশ গড়ার ব্যর্থ প্রয়াসের শিক্ষা ব্যবস্থা গ্রহণ করা। শিক্ষায় শিক্ষিত না হলে মানুষ পাবো কোথায়? সবই আকারে মানুষ মানে আমি সেগুলোকে নামানুষ বলেই ডাকি বা ভাবি।

কেউ যদি বলে অনাকাঙ্খিত তবে বলবো, অনাকাঙ্খিত হতে যাবে কেন ? তের জন ছাত্র ছাত্রীরা কেনো সামান্য প্রশ্নের জবাব দিতে পারলো না। যা প্রশ্ন করা হয়েছে তা কি পাঠ্যপুস্তুকে নেই। জাতীয় সঙ্গীতের রচয়িতা কেন, রণ সঙ্গীতের রচয়িতা কে, স্মৃতিসৌধ কোথায় অবস্থিত, আমি জিপিএ-৫ পেয়েছি ইংরেজিতে বলতে বলা হলো, অপারেশন সার্চ লাইট কি? জবাবে ছাত্র-ছাত্রীরা বলেন, “অপারেশন করার সময় যে লাইট জ্বালানো হয় সেটাই অপারেশন সার্চ লাইট”।

এমন যদি হয় শিক্ষা ব্যবস্থা তবে প্রত্যেক পিতামাতা এই ভিডিওটি দেখা মাত্র মনে হয় নিজের সন্তানকে আর প্রাতিষ্ঠানিক কোন শিক্ষা গ্রহণ করতে দিবেন না । তাকে বড় করে কারিগরি কর্মেই লাগিয়ে দিবেন। বলবেন মূর্খ হয়ে থাক বাবা-মা তবুও অমানুষ হয়ে যাসনে কোনোদিন। এমন শিক্ষার কোনো প্রয়োজন নেই। শিক্ষার সনদ থাকাকালেও যদি মূর্খ বলে লোকে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com