,

সেন্সরে ‘ডুব’ ছবির কর্তন দৃশ্য নিয়ে যা বললেন ফারুকী

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘ডুব’ এরইমধ্যে সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। দর্শক ছবিটি বড় পর্দায় ২৭ অক্টোবর দেখতে পাবেন। ছবির ছাড়পত্র পাবার আগে প্রয়াত নন্দিত কথাশিল্পী-নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের জীবনের স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে তৈরি হওয়ার বিতর্ক জড়িয়ে থাকায় ছবিটি নিয়ে সরকারি দফতরে চিঠি চালাচালি এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে। এবার জানা গেলো, ছবিটির পাঁচটি দৃশ্য বাদ দেয়া হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের একটি নথি ফাঁস হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। এতে দেখা যায়, সাবেরী কর্তৃক নিতুর সঙ্গে জুতা পাল্টানোর দৃশ্য ও সংশ্লিষ্ট সংলাপ বাদ পড়েছে।

দ্বিতীয় দৃশ্যের বিবরণে জাবেদ হাসানের সংলাপ, ‘এই গাড়ি, গাজীপুর চলো…’ বাদ দিতে হয়েছে। কর্তন করা হয়েছে জাবেদ হাসানের মরদেহের পাশে নিতুর সঙ্গে তার শিশুসন্তানের দৃশ্যও। জাবেদ হাসানের কন্যা সাবেরীর সঙ্গে তার চাচার কথোপকথন অংশে ‘এখন নিতু তো বলছে নয়নতারায় কবর দিতে…’ শীর্ষক চাচার সংলাপসহ কবরের স্থান নির্ধারণ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দৃশ্য ও সংলাপ কর্তন করা হয়েছে। একই সঙ্গে জাবেদ হাসানের মৃত্যুর পর অ্যাম্বুলেন্সে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়ার একটি দৃশ্যের পর অবশিষ্ট দৃশ্য ও সংলাপ কর্তন করা হয়েছে। এসব দৃশ্য কর্তন করে ৮ আগস্ট সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পায় ‘ডুব’। এ বিষয়টি নিয়ে ছবির নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে গতকাল একটি স্ট্যাটাস দেন।

তিনি সেখানে লিখেছেন, এই বিষয়ে আমি কথা বলতে চাই নাই! এখন যেহেতু সরকারের এই চিঠি উন্মুক্ত প্লাটফর্মে কেউ এনেছেন এবং গত কিছু দিন ধরেই এই বিষয়ে আমাদের অগণিত ভক্ত-দর্শক চিঠি লিখেছেন, সেহেতু আমার একটা ভাষ্য লিপিবদ্ধ থাকা দরকার মনে করছি।
১. চিঠিটা যারা প্রচার করেছেন তারা একদিকে আমাদের এবং দর্শকদের উপকারই করেছেন। চিঠির কল্যানে সবাই জানতে পারলেন আমরা সর্বসাকুল্যে দুই মিনিট পঁচিশ সেকেন্ড বাদ দিয়েছি। তার মানে গল্প যা থাকার তা-ই আছে। সামনে ট্রেলার আসবে, তখনই আরো স্পষ্ট হওয়া যাবে। আমার আর্টিস্টিক এক্সপ্রেশন বা গল্পের ক্ষতি হয় এমন কোনো কাট সেন্সর বোর্ড আমাকে করতে বলে নাই, আমিও তা করার প্রশ্নই আসে না।
২. ‘বস, আপনার কাছে আমরা এই আপোষ প্রত্যাশা করি না। আমাদেরকে আপনি হারতে দিবেন না, প্লিজ!’ এই ধরণের চিঠি প্রচুর পাচ্ছি। এর পেছনে যে ভালোবাসা আছে সেটার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। কিন্তু আমি তো কোনো যুদ্ধ করতে আসি নাই। ফলে জয়-পরাজয়ের খেলায় আমি নাই। আমি একটা গল্প বলতে আসছি, সেটাও মোটেও যুদ্ধংদেহী না। সেখানে বরং কিছু ভীষণ ভালনারেবল চরিত্র আছে। এখানে যুদ্ধের কোনো জায়গাই নাই, বরং ধ্যানের জায়গা থাকতে পারে, ভাবনার জায়গা থাকতে পারে। যাই হোক আবার আসি কাটের প্রসঙ্গে। যদিও আমি এইরকম যে কোনো অপ্রাসঙ্গিক কাটেরই বিরুদ্ধে, কিন্তু কখনো কখনো আপনাকে বিগার পিকচার দেখতে পারতে হবে। বাদ দেয়া শট এবং সংলাপ দেখলেই আক্কেলমান্দ লোকও বুঝতে পারবেন ‘জুতা বদলানোর শট বা এই গাড়ী যাবে গাজীপুর’- এইগুলো বাদ দিলেই গল্পের গাড়ীর গন্তব্য বদলে যাবে না, গল্পের গাড়ী তার বাড়ি পৌঁছবেই।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে বলিউড অভিনেতা ইরফান খান অভিনীত প্রথম ছবি ‘ডুব’। এতে আরও বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা, রোকেয়া প্রাচী ও কলকাতার পার্নো মিত্র প্রমূখ। বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে ছবিটি প্রযোজনা করেছে ভারতের এসকে মুভিজ ও ইরফান খানের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com