শনিবার, ২১ Jul ২০১৮, ১২:০৭ অপরাহ্ন

English Version


খালেদার সাক্ষাৎ পাননি বিএনপির নেতাকর্মীরা

খালেদার সাক্ষাৎ পাননি বিএনপির নেতাকর্মীরা



ঈদের দলীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে কারাগারে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গিয়ে আশাহত হয়েছেন দলটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

নেত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ পাননি তারা। বিষয়টিকে ‘দুঃখজনক’ অভিহিত করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তারা।

পূর্বঘোষিত কর্মসূচি হিসেবে শনিবার ঈদের দিন সকাল থেকেই রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে জড়ো হন বিএনপির নেতাকর্মীরা। বেলা সাড়ে ১১টায় কারাগারে সামনে আসেন বিএনপির অঙ্গসংগঠন মহিলা দলের নেতাকর্মীরা। এরপর সেখানে মূল দল ও অঙ্গসংগঠনের আরো কয়েক শ’ নেতাকর্মী জড়ো হন।

দুপুর সোয়া ১২টার দিকে সেখানে আসেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তারা কারাফটকে দায়িত্বরত কর্মকর্তা ও পুলিশের সঙ্গে কথা বলেন। তবে তাদের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। তারা সেখানে কিছুক্ষণ অপেক্ষার পর চলে যান।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ ঘটনাকে ‘দুঃখজনক’ আখ্যায়িত করে বলেন, সরকারের ইচ্ছার কারণেই খালেদা জিয়াকে জেলে আটক রাখা হয়েছে। দলীয় চেয়ারপারসনকে আন্দোলনের মাধ্যমে মুক্ত করা হবে।

খালেদা জিয়ার সঙ্গে দলটির নেতাদের সাক্ষাতের অনুমতি না দেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে পেট্রল পুলিশের পরিদর্শক আল মামুন ভুঁইয়া বলেন, গত পরশু বিএনপির পক্ষ থেকে আজ খালেদা জিয়ার সাক্ষাৎ চেয়ে আবেদন করা হয়েছিল। কিন্তু এ ব্যাপারে কারা অধিদপ্তরের কোনো অনুমতিপত্র তাদের কাছে আসেনি। এ জন্য বিএনপির নেতাদের সাক্ষাৎ করতে দেওয়া হয়নি।

এর আগে সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

এ সময় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন পর্যায়ক্রমে জোরদার করা হবে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশনেত্রীকে সরকার মিথ্যা মামলায় অন্যায়ভাবে কারাগারে বন্দি করে রেখেছে। আমরা আজকে ভারাক্রান্ত হৃদয়ে ঈদ উদযাপন করছি। আমরা আন্দোলনের মধ্যে আছি। আমাদের নেত্রী যে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের কথা বলে গেছেন, সেই নিয়মতান্ত্রিক শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকে আমরা প্রত্যেকটি স্তরে জোরদার করছি। আমরা মনে করি, আন্দোলনের মাধ্যমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আমরা মুক্ত করতে পারব।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘বিএনপির কাছে এখন মূল চ্যালেঞ্জ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা। আমরা দেশনেত্রীকে মুক্ত করে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে পারব।’

কারাগারে অসুস্থ খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসায় সরকার অবহেলা করছে অভিযোগ করে অবিলম্বে তার মুক্তি এবং ইউনাইটেড হাসপাতালে তার চিকিৎসার দাবি আবার জানান বিএনপির মহাসচিব।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media




ফুটবল স্কোর



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com