বৃহস্পতিবার, ২১ Jun ২০১৮, ১২:৩৬ অপরাহ্ন



তারা কি রাষ্ট্রের আইনজীবী ? না আওয়ামী লীগের আইনজীবী

তারা কি রাষ্ট্রের আইনজীবী ? না আওয়ামী লীগের আইনজীবী



নববার্তা: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলা নিয়ে এটর্নি জেনারেল ও দুদুকের আইনজীবীদের অবস্থান সম্পর্কে সমালোচনা করেছেন দলীয় নেতারা।

স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান তাদের উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়ে বলেন, ‘তারা কি রাষ্ট্রের আইনজীবী? না আওয়ামী লীগের আইনজীবী? তাদের কর্মকাণ্ডে স্পষ্ট প্রমাণিত হয়- রাষ্ট্রের প্রতি, জনগণের প্রতি তাদের কোনো দায়বদ্ধতা নেই। তাদের কর্মকাণ্ডে প্রমাণ হয় বেগম খালেদা জিয়ার শাস্তির পেছনে সরকারের মদদ রয়েছে।’

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয় নেতা মশিউর রহমান যাদু মিয়ার ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ আয়োজিত ‘চলমান রাজনৈতিক সঙ্কট : কোন পথে বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে নজরুল এসব কথা বলেন।

নজরুল ইসলাম বলেল, ১৫টি মামলা কাঁধে নিয়ে শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন। ১/১১ সরকারের আমলে করা শেখ হাসিনার মামলাগুলো প্রত্যাহার হলে বেগম জিয়ার মামলা কেন প্রত্যাহার হলো না? আসলে আওয়ামী লীগ বেগম খালেদা জিয়া জনপ্রিয়তাকে ভয় পায়। তিনি বলেন, দেশ ও দেশের জনগণকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। ফলে গণতন্ত্র গভীর সংকটে পড়ে যাচ্ছে।

নজরুল বলেন, নিজেরদের অপকর্ম আড়াল করতে বিএনপি নেত্রীকে জেলে দিয়েছে আওয়ামী লীগ। ব্যাংকে হরিলুট চলছে। হাজার হাজার কোটি টাকা লুট হচ্ছে। আর এই লুটপাটে সহায়তা করছে খোদ সরকার। কোটি কোটি ডলার পাচার হচ্ছে এবং বিদেশে সেকেন্ড হোম গড়ে তুলছে এই লুটপাটকারীরা। এখনই এদের থামাতে হবে।

তিনি বলেন, জাতীয় নেতা মশিউর রহমান যাদু মিয়া যে গণতন্ত্রের জন্য আজীবন লড়াই করেছেন, সে গণতন্ত্র আজও প্রতিষ্ঠিত হয়নি। সেদিন যদি যদি যাদু মিয়া প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের পাশে এসে না দাঁড়াতেন, তাহলে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হতো কিনা সন্দেহ ছিল। যাদু মিয়া শুধু জিয়ার পাশেই দাঁড়াননি; গণতন্ত্রের জন্য তিনি ন্যাপের নির্বাচনী প্রতীক ধানের শীষ বিএনপির হাতে তুলে দিয়েছিলেন।

বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভূইয়ার সভাপতিত্বে ও মহানগর সদস্য সচিব মো. শহীদুননবী ডাবলুর সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন এলডিপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, বিএনপির সহ-গবেষণা সম্পাদক কাদের গনি চৌধুরী, লেবার পার্টি মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, কল্যাণ পার্টির যুগ্ম মহাসচিব আল আমিন ভূইয়া রিপন, ন্যাপের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ফারুক হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব স্বপন কুমার সাহা, সম্পাদক মো. কামাল ভূইয়া, মো. মঞ্জুরুল আলম, যুবনেতা আবদুল্লহ আল কাউছারী প্রমুখ।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media








© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com