লাইফ সাপোর্টে রাজীব

রাজধানীতে দুই বাসের চাপায় হাত হারানো কলেজছাত্র রাজীব হোসেনের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় তাকে লাইফসাপোর্টে রাখা হয়েছে।
আজ মঙ্গলবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অর্থোপেডিকস বিভাগের প্রধান শামসুজ্জামান শাহীন জানান, রাজীবের মাথায় আঘাতজনিত কারণে নিউরোলজিক্যাল অবস্থার অবনতি ঘটেছে। এ ছাড়া শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় রাজীবকে লাইফসাপোর্টে রাখা হয়েছে।

সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের এই ছাত্র গত ৩ এপ্রিল বিআরটিসির একটি দোতলা বাসে পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে গন্তব্যে যাচ্ছিলেন। এ সময় স্বজন পরিবহনের একটি বাস তার বাসটিকে ঘেঁষে ওভারটেক করতে গেলে মাঝখানে চাপা পড়ে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় তার ডান হাত। পরে তাকে উদ্ধার করে পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে পর দিন গত বুধবার তাকে ঢামেক হাসপাতালে নেয়া হয়। সংকটাপন্ন রাজীব এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন।

জানা গেছে, ১০ বছর আগে মা ও ৮ বছর আগে বাবা হারান রাজীব। এতিম দুই ভাইকে নিয়ে গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী বাউফল থেকে চলে আসেন ঢাকায়। ঠাঁই মেলে খালা জাহানারা বেগমের কাছে। খালা তাকে রাজধানীর পোস্ট অফিস হাইস্কুলে ক্লাস নাইনে ভর্তি করিয়ে দেন। পরে রাজীব ভর্তি হন সরকারি তিতুমীর কলেজের বাণিজ্য বিভাগে। রাজীবের ইচ্ছা ছিল এতিম দুই ভাইকে মানুষের মতো মানুষ করে গড়ে তোলার। কিন্তু দুই বাসের চাপায় ডান হাত হারিয়ে এখন মৃত্যু পথযাত্রী রাজীব। তার ছোট দুই ভাই মেহেদী হাসান (১৩) ও আবদুল্লাহ (১১) কোরআনে হাফেজ। হাসান এখন সপ্তম শ্রেণিতে ও আবদুল্লাহ ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ছেন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ




টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com