গান গেয়ে মঞ্চ মাতালেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

নববার্তা রিপোর্ট : নিজ কণ্ঠে গান গেয়ে মঞ্চ মাতালেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী এমপি।  মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান শেরপুর শহীদিয়া আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যের মাঝে হঠাৎ করে নিজের মা ও পৃথিবীর সব মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে গান গাইতে শুরু করেন। ‘আমার সাধ না মিটিল, আশা না পুরিল…সকলই ফুরায়ে যায় মা…পৃথিবীর কেউ ভালো তো বাসেনা…এ পৃথিবী ভালোবাসিতে জানে না…যেথা আছে শুধু ভালোবাসাবাসি…সেথা যেতে প্রাণ চায় মা…আমার সকলই ফুরায়ে যায় মা’।

হঠাৎ শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর মুখে মায়ের গান শুনে উপস্থিত দশ সহস্রাধিক মানুষ কয়েক মিনিটের জন্য আবেগে আপ্লুত হয়ে ওঠেন। এর আগে স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে প্রতিমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা দেয় হয়।

স্থানীয় এমপি আলহাজ্ব হাবিবর রহমানের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মমতাজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মজিবর রহমান মজনু, রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক এড, শফিকুল ইসলাম।

এছাড়া অন্যদের শেরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পৌরসভার মেয়র আব্দুস সাত্তার, সহ-সভাপতি মুনসী সাইফুল বারী ডাবলু, আ.লীগ নেতা মকবুল হোসেন, আহসান হাবীব আম্বীয়া, এড. রেজাউল করিম মজনু, বদরুল ইসলাম পোদ্দার ববি, শাহজামাল সিরাজী, রেজাউল করিম রেজা, প্রকৌশলী আসিফ ইকবাল সনি, কোরবান আলী মিলন, মুক্তিযোদ্ধা কেএম ওবায়দুর রহমান, শিক্ষক সমিতির নেতা অধ্যক্ষ হাফিজুর রহমান, আব্দুল হাই বারী, এমএ মতিন, আকতার উদ্দিন বিপ্লব, যুবলীগ নেতা তারিকুল ইসলাম তারেক, মোস্তাফিজুর রহমান ভুট্টো, ফারুক হোসেন, মহিলা আ.লীগের নেত্রী লায়লা আনজুমান আরা লিলি, ছাত্রলীগ নেতা সোহেল রানা, জিহাদুল ইসলাম জিহাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী বলেছেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষাখাতও অনেক এগিয়েছে। বর্তমান সরকার শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

প্রতিটি স্কুল-মাদ্রাসায় এই বছর থেকেই কারিগরি শিক্ষা আবশ্যক করা হবে মন্তব্য করে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান যুগে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই। এছাড়া মাদ্রাসা শিক্ষাকে আধুনিকায়ন করা হবে। এদিকে এই গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে ঘিরে দুপুরের পর থেকেই আওয়ামীলীগসহ দলের সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা খন্ডখন্ড মিছিল নিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে আসতে থাকেন।

এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের বিপুল সংখ্যক সদস্যরাও যোগ দেন। একপর্যায়ে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি জনসভায় রুপান্তরিত হয়।

নববার্তা/নজরুল

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ




টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com