,

মুক্তামনির হাতে চামড়া লাগানোর প্রথম ধাপ শেষ

‘হেমানজিওমা’ রোগে আক্রান্ত ১১ বছরের শিশু মুক্তামনির হাতে চামড়া প্রতিস্থাপনের প্রথম ও প্রাথমিক ধাপ শেষ হয়েছে। মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৯টা থেকে প্রায় আড়াই ঘণ্টার অস্ত্রোপচারে শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক ও মুক্তামনির মেডিকেল বোর্ডের সদস্য ডা. সামন্ত লাল সেন।

তিনি বলেন, মুক্তামনির পা থেকে চামড়া নিয়ে তার হাতে প্রতিস্থাপন করা হয়ে। প্রথম ধাপে প্রায় ৫০ শতাংশ চামড়া প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। আগামী দু’সপ্তাহ পড়ে বাকি অংশের অস্ত্রোপচার করা হবে। বর্তমানে মুক্তামনিকে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। এরআগে রোববার (০৮ অক্টোবর) চতুর্থ দফার অস্ত্রোপচারে মুক্তামনির হাতটি নতুন চামড়া লাগানোর উপযোগী করা হয়েছে। এটি তার সুস্থ হওয়ার প্রথম ধাপ বলে জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা।

গত ১২ আগস্ট প্রথম দফায় মুক্তামনির ডান হাত অক্ষত রেখেই দু’ঘণ্টার সফল অস্ত্রোপচার করা হয়। বার্ন ইউনিটের সমন্বয়কারী ও মুক্তামনির চিকিৎসায় গঠিত ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের সদস্য ডা. সামন্ত লাল সেন সেবার জানিয়েছিলেন, তিন কেজির মতো বাড়তি মাংস অপসারণ করা হয়েছে। টিউমার অপসারণে ফের কয়েকদফা অস্ত্রোপচার করতে হবে। এরপর গত ২৯ আগস্ট দ্বিতীয় দফার অস্ত্রোপচার শুরু হলেও জ্বর আসায় মুলতবি রাখা হয়।  গত ০৫ সেপ্টেম্বর তৃতীয় দফার অস্ত্রোপচারও সফল হয়।

গত ২৭ জুলাই ভিডিও কনফারেন্সে মুক্তামনিকে ও তার বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রতিবেদন দেখেন এবং ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের চিকিৎসকদের সঙ্গে বোর্ড মিটিং করেন সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকরা। পরে ই-মেইলে সিঙ্গাপুরের হাসপাতালটি জানিয়েছিল যে, ‘রোগটি ভালো হওয়ার নয় ও সেটি অস্ত্রোপচার করার মতোও নয়’। এ পর্যবেক্ষণ জানার পর গত ০২ আগস্ট ঝুঁকিপূর্ণ হলেও সব ধরনের সতর্কতা অবলম্বন করে বায়োপসি করার সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসকরা। সে অনুসারে গত ০৫ আগস্ট সফলভাবে মুক্তামনির বায়োপসি অপারেশন সম্পন্ন হয়।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com