,

ব্যালন ডি’অর জয়ের দৌড়ে মেসি-রোনালদো-নেইমার

২০১৭ সালের সেরা খেলোয়াড় বেছে নিতে ৩০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করেছে ফ্রান্স ফুটবল। সোমবার দিনভর এ তালিকা প্রস্তুত করে ‘ফ্রান্স ম্যাগাজিন’। স্বাভাবিকভাবে এবার ব্যালন ডি’অর জয়ের দৌড়ে তালিকায় স্থান পেয়েছেন বর্তমান বিশ্ব ফুটবলের সেরা তিন তারকা লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও নেইমার। এ তালিকায় সবচেয়ে বেশি সংখ্যক খেলোয়াড় স্থান পেয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের। এছাড়া বার্সেলোনাসহ বিশ্বের নামীদামি ক্লাবের খেলোয়াড়েরা এ তালিকায় রয়েছেন।

এবার ব্যালন ডি’অর জয়ের দৌড়ে বার্সেলোনা থেকে রয়েছেন মেসি ও সুয়ারেজ। গেলো মৌসুমটা খুব একটা ভালো যায়নি বার্সার। ঘরে তুলতে পারেননি তেমন কোনো বড় শিরোপা। তবে ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে বরাবরের মতোই উজ্জ্বল ছিলেন ম্যাজিক বয়। নতুন মৌসুমেও সেই ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন আছে। বিষয়টি তার ভক্তদের আশাবাদী করে তুলেছে-ফের ব্যালন ডি’অর বগলদাবা করবেন আর্জেন্টনাইন খুদে জাদুকর। বার্সা সমর্থকরা মেসিকে নিয়ে আশা করলেও সুয়ারেজ অবশ্য সেই তালিকায় নেই। গেলো বছর ভালো খেললেও ওয়ান্ডারম্যানের ছায়াতলে অনেকটাই ম্লাণ ছিলেন উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার।

অনুমিতভাবেই এ তালিকায় স্থান পেয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদ সুপারস্টার রোনালদো। গেলো মৌসুমটা দুর্দান্ত কাটিয়েছেন সিআরসেভেন। তার অনন্য নৈপুণ্যে লা লিগা ও চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জেতে রিয়াল। সঙ্গত কারণেই এবার ব্যালন ডি’অর জয়ের দৌড়ে সবার চেয়ে এগিয়ে থাকছেন তিনি। যদিও চলতি মৌসুমে তার গেলোর মৌসুমের পারফরম্যান্সের ছিঁটেফোটা নেই। পর্তুগিজ উইঙ্গারের সঙ্গে এ তালিকায় রিয়াল আরো আছেন ইসকো, লুকা মডরিচ, মার্সেলো, সার্জিও রামোস, টনি ক্রস ও করিম বেনজিমা।

গেলো মৌসুমে বার্সেলোনায় ছিলেন নেইমার। ভালো খেললেও মেসির ছায়াতলে অনেকটা ম্লান ছিলেন তিনি। সদ্যই ন্যু ক্যাম্প ছেড়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেইনে (পিএসজি) যোগ দিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান তারকা । ফরাসি ক্লাবটিতে যোগ দেয়ার পর থেকেই দ্যুতি ছড়াচ্ছেন এ ফরোয়ার্ড। যা তার ভক্তদেরও আশাবাদী করে তুলছে। স্বাভাবিকভাবে গেলো মৌসুমে দুর্দান্ত খেলা পাওলো দিবালা স্থান পেয়েছেন এ তালিকায়। তাকে ভাবা হচ্ছে পরবর্তী লিওনেল মেসি। বয়স বাড়ার সঙ্গে বল নিয়ে কারিকুরির দক্ষতা বৃদ্ধিই তাকে সেই স্বীকৃতি দিয়েছে। চলতি মৌসুমেও দারুণ সাফল্য পাচ্ছেন এ জুভেন্টাস স্ট্রাইকার। ৩০ জনের এ সংক্ষিপ্ত তালিকায় রয়েছেন তার সতীর্থ গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফনও। সিরি আ চ্যাম্পিয়ন হতে এবং চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে তুলতে জুভদের হয়ে বড় অবদান রাখেন তিনি।

সংক্ষিপ্ত তালিকায় স্থান মেলেছে টটেনহাম স্ট্রাইকার হ্যারি কেন ঝড়ের। গেলো মৌসুমের পারফরম্যান্স নতুন মৌসুমেও অনূদিত করছেন তিনি। হ্যাটট্রিক করার সংখ্যায় এ মুহূর্তে সবাইকে ছাড়িয়ে আছেন এ ইংলিশ ফুটবলে সেনসেশন। ১৯৫৬ সালে সর্বপ্রথম প্রচলন হয় ব্যালন ডি’অরের। ২০০৯ সাল পর্যন্ত তা বর্ষসেরা খেলোয়াড়কে দিত ফ্রান্স ফুটবল। তবে ২০১০ সালে ফিফার সঙ্গে মিলে তা হয়ে যায় ‘ফিফা ব্যালন ডি’ অর’। গেলো বছর সেই চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে আবার এককভাবে বর্ষসেরা খেলোয়াড়কে পুরস্কৃত করছে ফিফা ও ফ্রান্স ম্যাগাজিন। ফিফার পুরস্কারের নাম হয়েছে ফিফা দ্য বেস্ট। আর ফ্রান্স ফুটবলের পুরস্কারের নাম যথারীতি রয়েছে ব্যালন ডি’অর।

৩০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা: লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, নেইমার, পাওলো দিবালা, হ্যারি কেন, লুইস সুয়ারেজ, জিয়ানলুইজি বুফন, করিম বেনজিমা, আন্তেনিও গ্রিজম্যান, কিলিয়ান এমবাপ্পে, সার্জিও রামোস, ফিলিপ কুতিনহো, লুকা মডরিচ, মার্সেলো, রবার্ত লেভানদোভস্কি, এডেন হ্যাজার্ড, লিওনার্দো বনুচ্চি, ইসকো, এডেন জিকো, রাদামেল ফালকাও, সাদিও মানে, টনি ক্রস, পিয়েরে-এমরিক অবামেয়াং, এডিনসন কাভানি, এন’গোলো কাঁন্তে, ইয়ান ওবলাক, ড্রায়েস মার্তেন্স, কেভিন ডি ব্রুইন, ডেভিড দে গিয়া ও ম্যাট হুমেলস।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com