আসাদুজ্জামান নূর-এর ৭১তম জন্মদিন আজ - Nobobarta.com

আসাদুজ্জামান নূর-এর ৭১তম জন্মদিন আজ

আসাদুজ্জামান নূর; একজন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও পুরোদস্তুর সফল অভিনেতা। আজ ৩১ অক্টোবর মিডিয়া ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের জন্মদিন। ১৯৪৬ সালের এই দিনে নীলফামারী জেলায় তিনি জন্মগ্রহণ করেন। এ বছরে ৭১ বছর বয়সে পা রাখলেন। নন্দিত এই অভিনেতার এবারের জন্মদিন কাটবে পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে ঘরোয়া আয়োজনে। এ যেন বাংলাদেশ জন্মের সাথে জড়িয়ে থাকা মাইলফলকে পা দিলেন আলোচ্ছটার ‘নূর’।

তার শৈশব, কৈশোর এবং যৌবনের অংশ কেটেছে আমাদের নীলফামারীতে। জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্র মাধার মোড়ের পেছনেই মনোরম পরিবেশে তার বাড়ি। স্কুল ও কলেজের লেখাপড়া নীলফামারী এবং রংপুরে। তারপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৬৬ থেকে ১৯৭১। স্বাধীনতা আন্দোলনের উত্তাল সেই দিনগুলোতে অত্যন্ত সক্রিয়ভাবে যুক্ত ছিলেন ছাত্ররাজনীতির সাথে। ’৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে তার ছিল অগ্রণী ভূমিকা। ১৯৭২ সালে কর্মজীবন এবং অভিনয় জীবনে প্রবেশ। তিনি বর্তমানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় সংস্কৃতি মন্ত্রী, নীলফামারী সদর আসনের এমপি। এছাড়া তিনি বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ বিজ্ঞাপনী সংস্থা ‘এশিয়াটিক মার্কেটিং কমিউনিকেশন লিমিটেড’-এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টরের দায়িত্ব পালন করছেন।

পেশা শুরু হয়েছিল সাংবাদিকতা দিয়ে। ১৯৭২ সালে যোগ দিয়েছিলেন বহুল প্রচারিত সাপ্তাহিক ‘চিত্রালী’তে। কিন্তু বেশিদিন এ পেশায় থাকা হয়নি। পরের বছরই সোভিয়েত দূতাবাসে প্রেস রিলেশন্স অফিসার পদে নিয়োগপ্রাপ্ত হন। বেশ কয়েক বছর সেখানে দায়িত্ব পালনের পর ১৯৮০ সালে যুক্ত হন বিজ্ঞাপনী সংস্থা ‘ইস্ট এশিয়াটিক অ্যাডভার্টাইজিং লিমিটেড’ (অধুনা এশিয়াটিক মার্কেটিং কমিউইনেশন্স লিমিটেড) এর সঙ্গে। একই সঙ্গে ভূমিকা রাখছেন এম.আর.সি মোড লিমিটেড নামের একটি বিপণন গবেষণা প্রতিষ্ঠান পরিচালনায়।

                                                         পরিবারের সঙ্গে আসাদুজ্জামান নূর

১৯৭২ সাল থেকে নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের সঙ্গে গভীরবাবে সম্পৃক্ত থেকে বাংলাদেশের মঞ্চ নাটক বিকাশের ধারায় নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। এ পর্যস্ত দলের ১৩টি নাটকে ৬০০ বারেরও বেশি অভিনয় করেছেন। নির্দেশনা দিয়েছেন দু-টি নাটকের। তারমধ্যে একটি ‘দেওয়ান গাজীর কিসসা’ তিন শতাধিকবার মঞ্চায়িত হয়ে রেকর্ড গড়েছে সর্বোচ্চ মঞ্চ নাটক প্রদর্শনীর। অভিনয় নির্দেশনার পাশাপাশি বর্তমানে তিনি নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের কোষাধ্যক্ষ। মঞ্চ নাটক অভিনয়ের প্রধান ক্ষেত্র হলেও, তার আবেগ ও বুদ্ধির সমস্বিত অভিনয় প্রতিভার যথার্থ বিকাশ ঘটেছে টেলিভিশন, রেডিও এবং চলচ্চিত্র মাধ্যমেও। ১১০টিরও বেশি টিভি নাটক সিরিজ নাটকে অভিনয় করেছেন। তারমধ্যে জনপ্রিয়তায় ধন্য সিরিজ নাটক এইসব দিন রাত্রি, বহুব্রীহি, অয়োময় এবং কোথাও কেউ নেই। রেডিও’তে প্রচারিত তার নাটকের সংখ্যা ৫০-এর অধিক। তার অভিনীত চলচ্চিত্র ‘দহন’, ‘শঙ্খনীল কারাগার’- এবং ‘আগুনের পরশমণি’। ওধু অভিনয়ন নয়-মঞ্চের জন্য ব্রেখটের নাটকের বাংলা রূপান্তর, রবীন্দ্রনাথের তিনটি বিখ্যাত উপন্যাসের টিভি নাট্যরূপ এবং টিভির জন্যে মৌলিক নাটক রচনা করেছেন।

সমাজের মানুষের প্রতি ভালবাসা এবং দেশ, রাজনীতির প্রতি তাঁর সহদয়তার কারণে তিনি একজন সমাজ এবং রাজনীতি সচেতন ব্যক্তিত্ব হিসেবে সর্বশ্রেণীর মানুষের কাছে আদৃত। তাঁর পরিচালনাধীন বিজ্ঞাপনী সংস্থার ৫০ঢিরও বেশি বিজ্ঞাপনচিত্র ও ভিডিও ছবি নির্মিত হয়েছে সরাসরি তারই তত্ত্বাবধানে। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপন চিত্রে শিশু, নারী, রোগ এবং দারিদ্র্যকে বিশ্লেষণ করেছেন। অন্তর্দরদে। সামাজিক এবং সাংষ্কৃতিক কর্মকান্ডে একাধিকবার ভ্রমণ করেছেন যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, বুলগেরিয়া, জাপান, ভিয়েতনাম, সোভিয়েত ইউনিয়ন, ইতালি, ফ্রান্স, ভারত, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, সুইজারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডসহ পৃথিবীর আরও বহু দেশ।

আসাদুজ্জামান নূর একজন সার্থক আবৃত্তিকারও। তিনি বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সভাপতি। সফল অভিনয় শিল্পী, নির্দেশক এবং কর্মজীবী আসাদুজ্জামান নূর বর্তমানে দেশের সাংস্কৃতিক জগতের নানা আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত। তিনি সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সহসভাপতি। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধ, স্মৃতি ট্রাস্টের ট্রাস্টি বোর্ডের একজন সদস্য হিসেবে তিনি ‘মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর’ গঠনের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তার স্ত্রী শাহীন আখতার একজন চিকিৎসক। এক ছেলে সুদীপ্ত ও এক মেয়ে সুপ্রভাকে নিয়ে তার সুখের সংসার।

এই অমিত প্রতিভা মানুষটি জীবনের ৭১ বছর অতিক্রম করছেন মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর)। যার হাত ধরে নীলফামারীর শরীর থেকে মুছে গেছে মঙ্গাপীড়িতের কালো দাগ, যার ছোঁয়া আর অনুপ্রেরণায় তরুণ প্রজন্ম শুরু করেছে নতুন দিনের উদ্ভাবনী চেষ্টার সেই মানুষটি, সেই নীলফামারী ‘নূর’-টি বেঁচে থাক অনন্তকাল। তার সৃষ্টিতে, তার কর্মে। নববার্তা পরিবারের পক্ষ থেকে আসাদুজ্জামান ‘আরো জ্বলে উঠুন, ছড়ান আলোচ্ছটা, পুরো বাংলাদেশ এমনটাই কামনা।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ




টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com