সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৭:৪৪ অপরাহ্ন

English Version
সিলেটে বজ্রপাতে নয় জনের মৃত্যু

সিলেটে বজ্রপাতে নয় জনের মৃত্যু



  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেট, হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে ৯জনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে সিলেট জেলায় ১জন, হবিগঞ্জ জেলায় ৬জন এবং সুনামগঞ্জ জেলার ২জন রয়েছেন।

নিহতরা হলেন- সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলার লাকি কামারগাও গ্রামের নিহতের নাম নুরুল হক, নবীগঞ্জ উপজেলার বৈলাকপুর গ্রামের হরিচরণ পালের ছেলে নারায়ন পাল, আমড়াখাই গ্রামের হাবিব উল্লার ছেলে আবু তালিব, মাধবপুর উপজেলার পিয়াইম গ্রামের রামচরণ সরকারের ছেলে জহরলাল সরকার, লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া গ্রামের জাহেদ মিয়ার ছেলে চকি মিয়া, সুনামগঞ্জের ধাইপুর গ্রামের বসন্ত দাসের ছেলে স্বপন দাস, সিরাজগঞ্জের নওসের মিয়ার ছেলে জয়নাল মিয়া, ধর্মপাশা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুর্বাকান্দা গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে জুয়েল আহমদ, ও শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের ইসহাক আলীর ছেলে আলমগীর মিয়া।

গোয়াইনঘাটে : গোয়াইনঘাটের তোয়াকুল ইউনিয়নের লাকি কামারগাওয়ে বজ্রপাতে ১ জন নিহত হয়েছেন। বুধবার দুপুর ২টায় ইউনিয়নের লাকি কামারগাও গ্রামে আকস্মিক বজ্রপাতে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম নুরুল হক (৩০)। তিনি পার্শ্ববর্তী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মোড়ারগাও গ্রামের চন্ডু মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, ঘটনার সময় নুরুল গোয়াইনঘাটের তোয়াকুলের লাকি কামারগাওয়ে তার মামার বাড়ি যাচ্ছিলেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নিহতের নিকটাত্মীয়দের কাছে হস্তান্তর করেছে।

হবিগঞ্জে : হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন আরো আটজন। বুধবার দুপুরে জেলার বানিয়াচং, নবীগঞ্জ, লাখাই ও মাধবপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে এসব হতাহতের ঘটনা ঘটে।

বজ্রপাতে নিহতরা হলেন নবীগঞ্জ উপজেলার বৈলাকপুর গ্রামের হরিচরণ পালের ছেলে নারায়ন পাল, আমড়াখাই গ্রামের হাবিব উল্লার ছেলে আবু তালিব, মাধবপুর উপজেলার পিয়াইম গ্রামের রামচরণ সরকারের ছেলে জহরলাল সরকার, লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া গ্রামের জাহেদ মিয়ার ছেলে চকি মিয়া, সুনামগঞ্জের ধাইপুর গ্রামের বসন্ত দাসের ছেলে স্বপন দাস ও সিরাজগঞ্জের নওসের মিয়ার ছেলে জয়নাল মিয়া।

স্থানীয়রা জানান, সকাল ১১টায় বানিয়াচংয়ের মাকালকান্দি হাওড়ে প্রতিদিনের মতো কাজ করছিলেন ধানকাটা শ্রমিকরা। এসময় বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলেই সুনামগঞ্জের স্বপন দাস মারা যান। প্রায় একই সময়ে বানিয়াচংয়ের মাইচ্ছার বিল হাওড়ে বজ্রপাতে নিহত হন সিরাজগঞ্জের জয়নাল মিয়া। এছাড়া দুপুরের দিকে নবীগঞ্জের বৈলাকপুর হাওড়ে নারায়ন পাল ও আবু তালিব বজ্রপাতে নিহত হন। একই সময়ে মাধবপুরের পিয়াইম হাওড়ে নিহত হয় জহরলাল সরকার।

এছাড়া লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া হাওড়ে ধান কাটার সময় বজ্রপাতে আহত হন চকি মিয়া। গুরুতর অবস্থায় তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এছাড়া হবিগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় বজ্রপাতে আহত হন আরো ৮ ধানকাটা শ্রমিক।

আহতরা হলেন, সিরাজগঞ্জের দুলাল মিয়ার ছেলে কামরুল ইসলাম, মাকালকান্দি গ্রামের গোপেশ দাসের ছেলে দিপুল দাস (৩৭), একই গ্রামের বিষ্ণুপদ (৪৫), তকবাজখানী গ্রামের ওয়াহিদ আলীর ছেলে মিজানুর রহমান, নবীগঞ্জ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের নোয়াগাঁওয়ের মর্তুজ আলীর ছেলে জহুরুল মিয়া, আখলুছ মিয়ার ছেলে হাবিবুর রহমান (২০), জালাল উদ্দিনের ছেলে জসিম উদ্দিন (৩৫), মার্কুলী এলাকার রাশেদ মিয়ার ছেলে ইউনুছ মিয়া (৩০)। এদের মধ্যে ৪জনকে বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ফজলুল জাহিদ পাভেল বলেন, নিহতদের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে।

সুনামগঞ্জে : সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা ও শাল্লা উপজেলায় বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার দুপুরে বজ্রপাতে ধর্মপাশা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুর্বাকান্দা গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে জুয়েল আহমদ (১৮) ও শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের ইসহাক আলীর ছেলে আলমগীর মিয়ার (২৫) মৃত্যু ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, দুপুরে দুর্বাকান্দা গ্রামের জুয়েল মিয়া বাড়ির পাশে কাইলানী হাওরে ধান কাটতে যান। এসময় সময় বজ্রপাতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

অপরদিকে, শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের কাশিপুর-শরিফপুর গ্রামের আলমগীর মিয়া ট্রলি চালিয়ে ছায়ার হাওরে যাচ্ছিলেন। এসময় বজ্রপাতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। শাল্লা থানার ওসি দোলোয়ার হোসেন এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

লাইক দিন

Please Share This Post in Your Social Media




Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com