,

রওশনসহ ১৩ সদস্য অনুপস্থিত জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সভায়

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়িাম সদস্যদের বৈঠকে দলের কো-চেয়ারম্যান হিসেবে জিএম কাদের ও মহাসচিব হিসেবে এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারের নিয়োগকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া ১৬ এপ্রিল জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত হয়েছে। পার্টি চেয়ারম্যান এরশাদসহ তার সমর্থক ২৪ জন প্রেসিডিয়াম সদস্য বনানীর কার্যালয়ে এই বৈঠকে উপস্থিত থাকলেও বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদসহ বাকি ১৩ সদস্য সভায় আসেননি। আজ (রোববার) বেলা ১১টা ৪০ থেকে প্রায় দেড় ঘণ্টা এই বৈঠকের পর এরশাদের ভাই পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের সাংবাদিকদের জানান, আজকের বৈঠক তার দলের মন্ত্রিসভা থেকে বেরিয়ে আসার বিষয়ে একমত হয়েছেন ।

 

তিনি জানান, “মিটিংয়ে যারা উপস্থিত ছিলেন, তারা সবাই মতামত দিয়েছেন যে দলের রাজনীতৈক স্বার্থে সরকার থেকে বেরিয়ে আসাটা অত্যন্ত জরুরি। মাননীয় চেয়ারম্যানের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তীতে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হবে।” এর আগেও বিভিন্ন সময়ে জাতীয় পার্টির সদস্যদের মন্ত্রিসভা থেকে বেরিয়ে আসার বিষয়টি আলোচনায় আসে। তবে জাতীয় পার্টির সংসদীয় দলের আপত্তির কারণে তা কার্যকর করা যায় নি। সম্প্রতি রওশনপন্থিদের বিরোধিতার মধ্যেই এরশাদ নিজের ভাই জি এম কাদেরকে পার্টির কো চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেন, মহাসচিব পদে বাবলুকে আব্যাহতি দিয়ে ফিরিয়ে আনেন দীর্ঘদিনের আস্থাভাজন রুহুল আমিন হাওলাদারকে। এ নিয়ে দলে বিদ্রোহের মধ্যেও এরশাদ বলেন, তিনি তার সিদ্ধান্তে মৃত্যু পর্যন্ত অটল থাকবেন।

 

গত ২৬ জানুয়ারি এক সংবাদ সম্মেলনে সাবেক মন্ত্রী জি এম কাদের বলেন, “জাতীয় পার্টির অবস্থান জনগণের কাছে অস্পষ্ট। কারণ জাতীয় পার্টি একদিকে বিরোধী দল, আবার অন্যদিকে সরকারের মন্ত্রিসভায় আছে।” অন্যদিকে দশম সংসদের দুই বছর পূর্তির একদিন আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে রওশন সাফ জানিয়ে দেন, তারা সরকারেই থাকছেন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com