,

সমতল আদিবাসীদের জন্য স্বাধীন ভূমি কমিশন ও পৃথক মন্ত্রনালয় গঠন

সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম  #  জাতীয় আদিবাসী পরিষদ রাজশাহী মহানগর ও রাজশাহী জেলা কমিটির উদ্যোগে আজ সকাল ১০.৩০ টা থেকে ১১.৩০ টা পর্যন্ত সমতল আদিবাসীদের জন্য স্বাধীন ভূমি কমিশন ও পৃথক মন্ত্রনালয় গঠন এবং পার্বত্য চট্রগ্রাম চুক্তির যথাযথ, দ্রুত ও পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের দাবিতে গণ-মানববন্ধন কর্মসূচী রাজশাহী সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে অনুষ্ঠিত হয়।

গণ-মানববন্ধন কর্মসূচীতে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ রাজশাহী জেলা কমিটির সভাপতি বিমল চন্দ্র রাজোয়ার। গণ-মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, রাজশাহী মহানগর সাধারণ সম্পাদক আন্দ্রিয়াস বিশ্বাস, আদিবাসী যুব পরিষদ রাজশাহী জেলা কমিটির যুগ্ম-আহব্বায়ক উপেন রবিদাস, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) হেমন্ত মাহাতো,  আদিবাসী ছাত্র পরিষদ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক নকুল পাহান, পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ রাজশাহী মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মনি শংকর চাকমা, অর্থ সম্পাদক দিপেন চাকমা, তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুপন চাকমা।

সংহতি বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট লেখক ও সাংবাদিক প্রশান্ত কুমার সাহা, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা কমিটির সভাপতি কল্পনা রায়, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন মঞ্চ রাজশাহী সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, জনউদ্দ্যাগ রাজশাহী ফেলো জুলফিকার আহম্মেদ গোলাপ, বাসদ রাজশাহী জেলা সমন্বয়ক দেবাশিষ রায়।

বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকার ২০০৮ সালের নির্বাচনী ইশতেহারে ১৮.১ ধারায় প্রতিশ্র“তি প্রদান করেছিল যে, “আদিবাসীদের জমি, জলাধার এবং বন এলাকায় সনাতনি অধিকার সংরক্ষণের জন্য বিশেষ ব্যবস্থাগ্রহণসহ ভূমি কমিশন গঠন করা হবে।” ২০১৪ সালের নির্বাচনী ইশতেহারে ২২.১ ধারায় বলা হয়েছে যে, “ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘুদের জমি, বসতভিটা, বনাঞ্চল, জলাভূমি ও অন্যান্য সম্পদের সুরক্ষা করা হবে। সমতলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জমি, জলাধার ও বন এলাকায় অধিকার সংরক্ষণের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণসহ ভূমি কমিশনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।”

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার সমতল অঞ্চলের আদিবাসীদের বেহাত হওয়া ভূমি উদ্ধারের জন্য ভূমি কমিশন গঠনের জন্য এভাবে নির্বাচনী অঙ্গীকার প্রদান করলেও বিগত ৭ বছরে এ বিষয়ে কোন কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। পক্ষান্তরে সরকারী উদ্যোগে তথাকথিত ইকো-পার্ক, জাতীয় উদ্যান, সাফারী পার্ক, সরকারী ও বেসরকারী স্থাপনা, বিশেষ অর্থনৈতিক  অঞ্চল ও সংরক্ষিত বনাঞ্চল ইত্যাদি নামে সমতল অঞ্চলের আদিবাসীদের চিরায়ত ভূমি অধিকার খর্ব করে আদিবাসীদেরকে উচ্ছেদ করা হচ্ছে। অপরদিকে প্রশাসনের ছত্রছায়ায় প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা আদিবাসীদের ভূমি জবরদখল করে চলেছে। তাই সমতল অঞ্চলের আদিবাসীদের বেহাত হওয়া জায়গা-জমি পুনরুদ্ধার ও ভূমি সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে সমতলের আদিবাসীদের জন্য স্বাধীন ভূমি কমিশন গঠন ও পৃথক মন্ত্রনালয় গঠন করা অপরিহার্য।

আরো উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের আওতায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় সার্বভৌমত্ব ও অখন্ডতার প্রতি পূর্ণ ও অবিচল আনুগত্য রেখে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে সকল নাগরিকের রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, শিক্ষা ও অর্থনৈতিক অধিকার সমুন্নত এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে ১৯৯৭ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। সরকার নির্বাচনী ইশতেহারে “পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন করা হবে” মর্মে অঙ্গীকার করেছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত চুক্তির মৌলিক বিষয়সমূহ- বিশেষ করে রাজনৈতিক-প্রশাসনিক ক্ষমতা ও কার্যাবলী হস্তান্তর পূর্বক পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ ও তিন পার্বত্য জেলা পরিষদ সম্বলিত পার্বত্য চট্টগ্রামের বিশেষ শাসনব্যবস্থা কার্যকরকরণ, ক্ষতিগ্রস্ত জুম্মদের পুনর্বাসন, ভূমি সমস্যা সমাধান, বেসামরিকীকরণ ইত্যাদি মৌলিক বিষয়সমূহ এখনো অবাস্তবায়িত অবস্থায় রয়ে গেছে। বর্তমানেও চুক্তি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সরকারের কার্যকর কোন প্রক্রিয়া পরিলক্ষিত হচ্ছে না।  

আজও বাংলাদেশ সরকার আদিবাসীদের অবদানকে অস্বীকার করে চিরতরে আদিবাসীদের ইতিহাস ঐতিহ্যকে ধ্বংস করতে চায়। রাষ্ট্র কর্তৃক আদিবাসীদের অস্বীকারের ফলে এক শ্রেণী সন্ত্রাসী-ভূমিদস্যরা আদিবাসীদের জমি জবর দখল ও উচ্ছেদ করে সহায়-সম্পদ কেড়ে নিতে উৎসাহিত হযেছে। আদিবাসীরা প্রতিদিন জমি থেকে উচ্ছেদ হয়ে দেশান্তর হতে বাধ্য হচ্ছে। সারাদেশে আদিবাসীদের উপর ঘটে যাওয়া হত্যা, ধর্ষন, উচ্ছেদ, লুট, হামলা, অপহরন, মিথ্যা মামলা, গুম, ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ ঘটনায় তিব্র নিন্দা জানান এবং সকল ঘটনার বিচার দাবি করে বক্তারা।
 

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

আরও অন্যান্য সংবাদ


Nobobarta on Twitter




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com