সোমবার, ২৮ মে ২০১৮, ০৩:৩২ পূর্বাহ্ন



Uncategorized
অদূরে হাসপাতাল থাকলেও কাঁঠালিয়ার মানুষ চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত

অদূরে হাসপাতাল থাকলেও কাঁঠালিয়ার মানুষ চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত



কাঠালিয়া (ঝালকাঠি) প্রতিনিধিঃ- ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলা সদরে কোন হাসপাতাল না থাকায় পাঁচটি ইউনিয়ানের লক্ষাধিক মানুষ আধুনিক চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। জেলার সর্ব দক্ষিনে দরিদ্রতম উপজেলার নাম কাঁঠালিয়া। উপজেলার দের লক্ষাধিক মানুষের জন্য একমাত্র স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রা যা উপজেলা শহর থেকে ১০ কিলোমিটার দূরত্বে আমুয়া ইউনিয়ানে বিষখালীর শাখা নদীর পাড়ে অবস্থিত। আওরাবুনিয়া ইউনিয়ান থেকে এ হাসপাতালের দূরত্ব ২৫ কিলোমিটারের ও বেশি। ফলে একটি মাত্র ইউনিয়ানের মানুষ ছাড়া বাকি পাঁচটি ইউনিয়ানের মানুষ এ হাসপাতালের স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। উপজেলা শহরে শুধু মাত্র বহি-বিভাগের চিকিৎসা পদ্ধতির একটি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র আছে। সেখানে একজন ডাক্তার থাকার কথা থাকলেও দীর্ঘদিন ধরে পদটি শূন্য রয়েছে। একজন মাত্র উপ-সহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার দিয়ে চলছে উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি।ফার্মাসিস্ট ও অফিস সহায়ক পদ দুটিও শূন্য রয়েছে।দরিদ্র এলাকা হওয়ায় এখানে ব্যাক্তি মালিকানায় কোন বেসরকারি হাসপাতাল বা ক্লিনিক গড়ে ওঠেনি । শহরে দিলিপ চন্দ্র হাওলাদার নামের একজন এমবিবিএস ডাক্তার প্রাইভেট প্রাক্টিস করেন। তিনি অনেক সময় ব্যাক্তিগত কাজে উপজেলার শহরের গেলে উপজেলা শহরে ডাক্তার শূন্য থাকে। উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এমাদুল হক মনির বরেন, উপজেলা সীমানায় অসংখ্য খাল থাকায় যোগাযোগ ব্যবস্থা বেশ দুর্গম । স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রা উপজেলার এক কোনায় হওয়ায় স্বাস্থ্য সেবা পেতে সাধারন মানুষের কষ্টসাধ্য ও ব্যায় বহুল। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা খানম বলেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রা দূরবর্তী এলাকায় হওয়ায় গর্ভবতী মা,জখমী ও হৃদরোগসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত রোগীরা এ্যাম্বুলেন্স সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম সাদিকুর রহমান বলেন, উপজেলা সদরে সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা- কর্মচারীসহ অনেক গুরুত্বপূর্ন মানুষ বসবাস করেন। তারা প্রতি নিয়ত স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সদরে ভাল চিকিৎসা ব্যাবস্থা না থাকায় অনেক কর্মকর্তা- কর্মচারী পরিবার নিয়ে বসবাস করতে সাহস পান না, উপজেলা চেয়াম্যান মোঃ ফারুক সিকদার বলেন, কাঠালিয়া উপজেলার মানুষের সেবা পাওয়া মৌলিক অধিকার। তাদের এ সেবা দেয়ার দায়িত্ব সরকারের। উপজেলা সদরের ্্্্উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র এক একর ১৫ শতাংশ জমির ওপর অবস্থিত । এখানে এখন ও এক একর জমি খালি আছে। এ জমিতে ২০ শয্যার হাসপাতাল নির্মান করা সম্ভাব। আমি এ বিষয়ে এমপি মহদয়ের সাথে একাধিকবার কথা বলেছি। আশা করছি অতি তারাতারি হাসপাতাল নির্মান করে অবহেলিত ও দরিদ্রতম উপজেলার মানুষকে স্বাস্থ্য সেবা দিতে পারবো।

মোঃ আমিনুল ইসলাম
কাঠালিয়া (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media








© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com